৮৫ হাজার টাকার গেমিং পিসি তৈরি করার নিয়ম | বেস্ট গেমিং পিসি


৮৫ হাজার টাকার গেমিং পিসি তৈরি করার নিয়ম | বেস্ট বাজেট গেমিং পিসি

৮৫ হাজার টাকার গেমিং পিসি তৈরি করার বিবরণ

 

আসসালামুআলাইকুম বন্ধুরা আশা করি সবাই ভালো আছেন। আজকে আমি ৮৫ হাজার টাকার গেমিং পিসি তৈরি করব। এই গেমিং পিসি তে সব ধরনের গেম খেলতে পারবেন হাই সেটিং-এ কোন প্রকার সমস্যা ছাড়াই। এই কম্পিউটারটি তৈরি করা হয়েছে বাংলাদেশি ইউজারদের চাহিদা অনুসারে। এই গেমিং কম্পিউটার ভালো গেমিং এর পাশাপাশি ভালো ভিডিও এডিটিং ও অন্যান্য কাজ করতে পারবেন কোন প্রকার সমস্যা ছাড়াই। এই গেমিং পিসি তৈরি করা হয়েছে এ এমডি প্রসেসর দিয়ে। গেমিং পিসি তৈরি করার সকল বিস্তারিত বিবরণ নিচে দেওয়া।

 

এখন অনেকের মনে একটা প্রশ্ন থাকতে পারে এই কম্পিউটার কোন ধরনের মানুষের জন্য তৈরি করা হয়েছে। এই কম্পিউটার মূলত গেমারদের কথা মাথায় রেখে ও কনটেন্ট কৃষ্ণের কথা মাথায় রেখে তৈরি করা হয়েছে। এই কম্পিউটারে যেমন আপনি ভালো গেমিং করতে পারবেন তেমন আপনি ভালো ভিডিও এডিটিং করতে পারবেন কোন প্রকার সমস্যা ছাড়া। এই কাজগুলো বাদে বাকি যত কাজ আছে একটা কম্পিউটার করা যায় সবগুলো কাজ করতে পারবেন কোন প্রকার সমস্যা ছাড়া।

 

৮৫ হাজার টাকার গেমিং পিসি তৈরি করতে যে সকল কম্পোনেন্ট ব্যবহার করছে এই কম্পোনেন্টগুলো এই বাজেটের সব থেকে ভালো। এই কম্পোনেন্টগুলো আপনি যেকোনো লোকাল কম্পিউটারের সব থেকে কিনে কম্পিউটার বানাতে পারেন। আপনি যদি এর আগে কখনো নিজের কম্পিউটার তৈরি না করে থাকেন তাহলে আমি মনে করি আপনার আশেপাশে লোকাল যেকোনো কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারের মাধ্যমে কম্পিউটার তৈরি করা ভালো।

 

গেমিং পিসি তৈরি করতে আপনার যদি কোন প্রকার সাহায্য প্রয়োজন হয়ে থাকে তাহলে আমাদের ফেসবুক গ্রুপে নক করতে পারেন। আমাদের ফেসবুক গ্রুপের নাম হল Bangladesh Gamer । এই গ্রুপে অসংখ্য বাংলাদেশী গেমার আছে কেউ না কেউ আপনাকে সাহায্য করবে। কেউ যদি সাহায্য না করতে পারে আমিতো আছি আপনাকে সাহায্য করার জন্য। তাহলে এখনি জয়েন হয়েছেন আমাদের ফেসবুক গ্রুপে ফেসবুক পেজ। Bangladesh Gamer Facbook group

 

গেমিং পিসি কম্পোনেন বিবরণ


মাদারবোর্ড : এই গেমিং পিসি তে মাদারবোর্ড হিসেবে ব্যবহার করছি ASRock AB350M-HDV মাদারবোর্ডটি। এই মাদারবোর্ড হল Entry level B350 chipset মাদারবোর্ড। আপনার কাছে যদি বাজেট বেশি থাকে তাহলে আপনি প্রিমিয়াম মাদারবোর্ড ব্যবহার করতে পারেন। তবে তবে মাদার্বোর্ড টি Entry level  হলেও এতে আপনি পাচ্ছেন ৪ টি USB 3.1 Gen 2 পোর্ট। আর যেহেতু B350 chipset থাকার কারণে এই মাদারবোর্ডটিতে আপনি রাইজেনের প্রসেসরকে ওভারক্লক করতে পারবেন। ভবিষ্যতে যে কোন সময় এই মাদাবোর্ডের সাহায্যের রাইজেন প্রসেসর টিকে ওভারক্লক করতে পারবেন কোন প্রকার সমস্যা হবেনা এই মাদারবোর্ড।

 

টেকনিক্যাল বিবরণ ধরনের দাম :

  • Micro ATX
  • ASRock Super Alloy
  • Supports AMD Socket AM4 A-Series APUs (Bristol Ridge) and Ryzen Series CPUs (Summit Ridge & Raven Ridge)
  • Supports DDR4 3200+ (OC) (Ryzen CPU) / 2400 (A-series APU)
  • 1 PCIe 3.0 x16, 1 PCIe 2.0 x1
  • Graphics Output: HDMI, DVI-D, D-Sub
  • Supports Triple Monitor
  • 7.1 CH HD Audio (Realtek ALC887 Audio Codec), ELNA Audio Caps
  • 4 SATA3, 1 Ultra M.2 (PCIe Gen3 x4 & SATA3)
  • 6 USB 3.1 Gen1 (2 Front, 4 Rear)
  • Realtek Gigabit LAN

 

৮৫ হাজার টাকার গেমিং পিসি এ মাদারবোর্ডেরটি সবথেকে ভালো। ASRock AB350M-HDV মাদারবোর্ড ব্যবহার করার কারণে আপনি ভবিষ্যতে গেমিং কম্পিউটার টি কোন প্রকার সমস্যা ছাড়া আপডেট করতে পারবেন। এই মাদারবোর্ড দাম পরবে ৭৫০০ টাকা।


প্রসেসর : যে কোন কম্পিউটার বিল্ডের করার জন্য সবার প্রথমে যে জিনিসের প্রয়োজন তা হল প্রসেসরের। এ ক্ষেত্রে আমরা প্রসেসর হিসেবে বেছে নিয়েছি AMD Ryzen 5 1400 প্রসেসরটি। এর মধ্যে ৪ টি ফিজিকাল কোর থাকলেও R5 প্রসেসর থেকে মূলত SMT টেকনোলজি দেয়া আছে। অর্থাৎ যতটি কোর তার দ্বিগুণ থ্রেড। এই প্রসেসরেও আপনি পাচ্ছেন ৮ টি থ্রেড।

 

প্রসেসরের বেইজ স্পীড হচ্ছে ৩.২ গিগাহারটজ এবং তা বুস্ট হয়ে ৩.৪ গিগাহারটজ পর্যন্ত স্পীডে উঠবে। তবে রাইজেনের সকল প্রসেসরকে ওভারক্লক করা যায়। আপনার কাছে যদি ভালো কুলিং সিস্টেম থাকে তাহলে এই প্রসেসরের ওভারক্লক করবেন তাছাড়া করবেন না। এই প্রসেসরের দাম পরবে ১৪ হাজার টাকা।

 

সিপিইউ কুলার : আমরা যেহেতু প্রসেসরটি ওভারক্লক করবো না তাই  আমরা  প্রসেসরের সাথে আসা রেইথ স্টেলথ কুলারটিই ব্যাবহার করছি। আপনার বাজেট থাকলে আপনি বাজারে যে কোন একটি ভালো মানের কুলার ব্যবহার করতে পারেন। আপনি চাইলে ৩.৬ গিগাহারটজ পর্যন্ত স্টক কুলারটি ব্যাবহার করতে পারবেন।


মেমোরি : আমরা ৮৫ হাজার টাকার গেমিং পিসি তে র‍্যাম হিসেবে আমরা ব্যবহার করছি GeIL Evo Spear 2400 র‍্যাম ৮ জিবি । বর্তমানে যেহেতু র‍্যামের বাজার অনেকটাই গরম তাই ৮ জিবির বেশি র‍্যাম এখান নেয়া যাচ্ছে না। আপনি চাইলে ভবিষ্যতে আপনার প্রয়োজন অনুযায়ী আরও বেশি র‍্যাম ব্যবহার করতে পারবেন। বর্তমানে বাজেট কম থাকার কারণে আমরা কম র‍্যাম ব্যবহার করেছি।

 

ভবিষ্যতে আপনারা দুইটা 8GB+8GB 16GB RAM ব্যবহার করতে পারেন। এর ফলে আপনার কম্পিউটারের স্পিড অনেক গুন বেড়ে যাবে। এই প্রসেসরের দাম পরবে ৮ হাজার ২০০ টাকা।


হার্ডড্রাইভ : হার্ডডিক্স হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে অতি পরিচিত ওয়েস্টার্ন ডিজিটাল 1 Terabyte হার্ডড্রাইভ। এক কথা বলা যায় এই হার্ডডিক্সটি হল বাংলাদেশের জাতীয়হার্ডডিক্স। আমাদের বাজেট কম থাকার কারণে আমরা SSD ব্যবহার করতে পারিনি। তাছাড়া গেমিং যখন এখানে মুখ্য বিষয় তাই আধুনিক গেমগুলোর সাইজ চিন্তা করে আর SSD ব্যবহার করিনি। ৮৫ হাজার টাকার গেমিং আমি মনে করি একটা SSD ব্যবহার করতে প্রয়োজন। এই হার্ডডিস্কের দাম পরবে ৪ হাজার টাকা।


গ্রাফিক্স কার্ড : গ্রাফিক্স কার্ড হিসেবে ব্যবহার করছি XFX এর RX 570 8 GB RS XXX এডিশনের গ্রাফিক্স কার্ড। কিন্তু এক্ষেত্রে গ্রাফিক্স কার্ড পছন্দ সম্পূর্ণ আপনাদের উপর নির্ভর করবের। তবে গ্রাফিক্স কার্ড GTX 1060 বা RX 570 এর নিচে এর নিচে না নামাই ভালো। এই গ্রাফিক্স কার্ড এর স্ট্রিম প্রসেসর ২০৪৭ টি, কোর ক্লক স্পীড ১২৮৬ মেগাহার্টজ এবং মেমরি স্পীড হচ্ছে ৭০০০ মেগাহার্টজ। এই গ্রাফিক্স কার্ডটি যেকোনো আধুনিক গেম হাই সেটিংসে ৫০+ এভারেজ ফ্রেমস পার সেকেন্ডে খেলতে পারবেন। এই হার্ডডিস্কের দাম পরবে ৮ হাজার ৪২০০০ টাকা। 


পিএসইউ : পিএসইউ অথবা পাওয়ার সাপ্লাই হিসেবে ব্যবহার করছি Antec Neo Eco 550 watt Semi Modular পাওয়ার সাপ্লাই। এই পাওয়ার সাপ্লাই তে আপনি পাবেন 80+ ব্রোঞ্জ পাওয়ার এফিসিয়েন্সি সারটিফিকেশন, কারেন্ট ও ভোল্টেজ ওঠা/নামা থেকে প্রোটেকশন, ২ টি ৮ পিনের পিসিআই কানেক্টর যা আমাদের RX 570 এর জন্য যথেষ্ট সহ আরো অনেক ফিচার। আর সেমি মডুলার হবার কারণে আপনাকে অতিরিক্ত কেবল মেনেজমেন্টের ঝামেলা করতে হবে না। ৮৫ হাজার টাকার গেমিং পিসি জন্য এই পাওয়ার সাপ্লাই টি সবথেকে ভালো। এই পাওয়ার সাপ্লাই দাম ৪৫০০ টাকা।


চেসিস : এবার আসা যাক কম্পিউটারের ঘর বা চেসিস নিয়ে। কেচিং হিসেবে ব্যবহার করছে Neos White/Silver Combo Window চেসিস। টেম্পারড গ্লাসের যুগে আমরা চেয়েছি ভালো মানের Acrylic Clear Site Panel সহ চেসিস নিতে যাতে জায়গা ও ফিচারের কমতি হবে না। ৮৫ হাজার টাকার গেমিং পিসি জন্য এই গেমিং কেসিং সবথেকে ভালো আমি মনে করি। এই চেসিস দাম পরবে ৩৫০০ টাকায়।


আরেকবার দেখে নেয়া যাক কোন কোম্পানির গুলো কি ধরনের দাম :

ProcessorAMD Ryzen™ 5 1400 Processor14000 টাকা
MotherboardASRock AB350M-HDV৭৫০০ টাকা
RAMGEIL EVO SPEAR 8GB৮২০০ টাকা
Storage1TB Terabyte4000 টাকা
Power Supply
RX 570 8 GB RS XXX৪২০০০ টাকা
Power SupplyXtreme V3৪৫০০ টাকা
চ্যাসিস/কেসিংAntec NeoECO Modular NE550M৩৫০০ টাকায়

 


এই কম্পিউটারে আমার গেম খেলা ও ভিডিও এডিটিং অনুভূতি তুলে ধরা হলো আপনাদের।

 

আরেকটা কথা এই গেমিং কম্পিউটার শুধু ফুল এইচডি গেমিং করতে পারবেন ফুল। আপনি ইচ্ছা করলে টুকে গেমিং করতে পারবেন মোটামুটি মানের। টুকে গেমিং করা যায় মাঝে মাঝে বালোমানের ফ্রেন্ড ড্রপ হয়। তাছাড়া আপনি যদি ফুল এইচডি আল্ট্রা সেটিং এ গেমিং করেন কোন প্রকার সমস্যা হবে না।

 

বেস্ট গেমিং পিসি

 

PUBG PC : আমি প্রায় দুই দিনের বেশি PUBG PC গেম খেলছি PUBG গেমটি খেলার অনুভূতি ছিল অনেকটাই ভালো। এই গেমিং কম্পিউটার কোন প্রকার সমস্যা ছাড়া PUBG PC গেমটি খেলতে পারবেন হাই সেটিং এ কোন প্রকার সমস্যা ছাড়াই। ৮৫ হাজার টাকার গেমিং পিসি  টি এ বাজেটের মধ্যে অনেক ভালো এই ডেমোক্রেটিক।

 

PUBG PC LITE : কোন প্রকার সমস্যা ছাড়াই PUBG PC LITE গেমটি খেলতে পারবেন হাই সেটিং-এ কোন। গ্রাফিক্স কোয়ালিটি আমার কাছে অনেক ভালো লেগেছে এই গেমিং কম্পিউটারে। পাশাপাশি ইমুলেটর সাহায্যে মোবাইল পাবজি গেম খেলতে পারবেন কোন প্রকার সমস্যা ছাড়াই হাই সেটিং-এ।

 

GTA 5 : আমি প্রায় দুই দিনের বেশি GTA 5 গেম খেলছি GTA 5 গেমটি খেলার অনুভূতি ছিল অনেকটাই ভালো। এই গেমিং কম্পিউটার কোন প্রকার সমস্যা ছাড়া GTA 5 গেমটি খেলতে পারবেন হাই সেটিং এ কোন প্রকার সমস্যা ছাড়াই। এই কম্পিউটারে GTA 5 গেমটি খেলার অনুভূতি ছিল অসাধারণ দুই দিনের বেশি গেমটি খেলে দেখেছি।

 

ফটোশপ গ্রাফিক্স ডিজাইন: আমরা এই কম্পিউটারে অ্যাডোবি ফটোশপ ও গ্রাফিক্স ডিজাইন সফটওয়্যার ব্যবহার করে দেখেছি। সফটওয়্যার গুলো অনেক সুন্দর ভাবে চলছে কোন সমস্যা ছাড়া। আপনারা যে কোন গ্রাফিক্স সফটওয়্যার ব্যবহার করতে পারবেন কোন সমস্যা হবে না। যারা গ্রাফিক্স নিয়ে কাজ করেন তাদের জন্য খুব ভালো একটি কম্পিউটার এটা। আপনি যদি একজন প্রফেশনাল গ্রাফিক্স ডিজাইনার হয়ে থাকেন তাহলে 16GB + 16GB 32GB RAM ব্যবহার করতে পারেন। অনেক ভালো হবে আমি মনে করি।

 

ভিডিও এডিটিং : বাংলাদেশের ইউটিউবার দের কথা মাথায় রেখে আমরা এই কম্পিউটারে ভিডিও এডিটিং করে দেখেছি। এই কম্পিউটারে আপনি HD+ ভিডিও এডিটিং করতে পারবেন খুব সুন্দর ভাবে কোন সমস্যা ছাড়া। 2K ভিডিও এডিটিং করতে গেলে মাঝে মাঝে ভালো লেঘের দেখা পেতে হবে। ৮৫ হাজার টাকার গেমিং পিসি এই বাজেটের মধ্যে অনেক ভালো একটি ভিডিও এডিটিং কম্পিউটার।

 

কোডিং : কোডিং বা অ্যাপস ডেভেলপ করতে গেলে কোন ভালো মানের কম্পিউটার লাগেনা। আপনার কাছে যদি সাধারণ কম্পিউটার থাকে তাহলে আপনি এই সকল কাজ খুব সুন্দর ভাবে করতে পারবেন। আপনি যদি এই ৮৫ হাজার টাকার গেমিং কম্পিউটার কে কোডিং বা অ্যাপস ডেভেলপে ব্যবহার করেন  তাহলে শুধু আপনার টাকা নষ্ট হবে আর কিছু না। কোডিং বা অ্যাপস ডেভেলপ সবথেকে ভালো হবে ল্যাপটপ অথবা ম্যাকবুক।

 

আপনার মূল্যবান সময় নষ্ট করে আমাদের ওয়েবসাইটে আসার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ। আশা করি আমার এই পোস্টটি আপনার ভালো লেগেছে। এই বাজেট গেমিং পিসিটি আপনার কাছে কিরকম লেগেছে নিচে কমেন্টের মাধ্যমে আমাদেরকে জানাতে পারেন


© 2018-2020 Bangladeshgamer.com